চট্টগ্রাম ভেটেরিনারি বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষামন্ত্রী

আমরা জ্ঞান ও প্রযুক্তির রপ্তানিকারক হবো

প্রাণি ও মৎস্য জাদুঘর এবং বঙ্গবন্ধুর ম্যুরাল উদ্বোধন

নিজস্ব প্রতিবেদক
ভেটেরিনারি বিশ্ববিদ্যালয়ে গতকাল বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নবনির্মিত ম্যুরাল উদ্বোধন করেন শিক্ষামন্ত্রী-সুপ্রভাত
ভেটেরিনারি বিশ্ববিদ্যালয়ে গতকাল বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নবনির্মিত ম্যুরাল উদ্বোধন করেন শিক্ষামন্ত্রী-সুপ্রভাত

শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ বলেছেন, ‘জ্ঞান ও প্রযুক্তির জন্য চিরকাল বিদেশিদের দিকে তাকিয়ে থাকলে হবে না। আমাদেরকে নতুন জ্ঞান ও প্রযুক্তির আবিষ্কার করতে হবে। আমদানি করলে হবে না। আমরা রপ্তানিকারক হবো।’
গতকাল বুধবার চট্টগ্রাম ভেটেরিনারি ও এনিম্যাল সায়েন্সেস বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘শিক্ষাবর্ষ সমারম্ভ অনুষ্ঠান ২০১৬-২০১৭’ তে তিনি এ কথা বলেন।
সমারম্ভ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে শিক্ষামন্ত্রী আরও বলেন, ‘আমরা সবাইকে স্কুলে নিয়ে এসেছি। তাদেরকে ধরে রাখতে হবে। উচ্চ শিক্ষায় উন্নতি করতে হবে।’ শিক্ষাব্যবস’ার মৌলিক পরিবর্তন প্রয়োজন বলে মনে করেন তিনি। শিক্ষামন্ত্রী বলেন, ‘প্রচলিত ও গতানুগতিক শিক্ষাব্যবস’া দিয়ে দেশকে আধুনিক করা যাবে না। এর জন্য মৌলিক পরিবর্তন চাই।’
বিকেল সাড়ে তিনটায় ভেটেরিনারি বিশ্ববিদ্যালয়ে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমানের নবনির্মিত ম্যুরাল উদ্বোধন করেন শিক্ষামন্ত্রী। এরপর বিশ্ববিদ্যালয়টিতে দেশের একমাত্র প্রাণি জাদুঘর ও বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর মধ্যে পূর্ণাঙ্গ মৎস্য জাদুঘরের উদ্বোধন করেন তিনি। এ সময় তার সাথে আরো উপসি’ত ছিলেন মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের সচিব মো. সোহরাব হোসাইন, অর্থনীতিবিদ ও ইউজিসি প্রফেসর ড. মইনুল ইসলাম, বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. গৌতম বুদ্ধ দাশ ও চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের সাবেক মেয়র এ.বি.এম মহিউদ্দিন চৌধুরী।
সমারম্ভ অনুষ্ঠানে দেশের শিক্ষাব্যবস’ায় ভেদাভেদের সমালোচনা করেন প্রফেসর ড. মইনুল ইসলাম। তিনি শিক্ষাবর্ষের সমারম্ভ বক্তব্যে বলেন, ‘বাংলাদেশে ১১ রকম শিক্ষাব্যবস’ার প্রচলন আছে। কৃষকের সন্তানের জন্য এক রকম, ধনী পরিবারের সন্তানের জন্য আরেক রকম। এই শিক্ষাব্যবস’া নিয়ে আমরা দৌড়ে যেতে পারবো না। কুদরত-ই-খুদা যে শিক্ষানীতি প্রস্তাব করেছিলেন, তা বাস্তবায়ন হচ্ছে এতোদিনে।’ তিনি আরও বলেন, ‘দক্ষিণ এশিয়ায় শিক্ষাব্যবস’ায় সর্বনিম্ন বাজেট হয় বাংলাদেশে। বাজেটের ১২ থেকে ১৩ শতাংশ বরাদ্দ দেয়া হয় এখাতে। দেশের জিডিপির দুই শতাংশ বরাদ্দ দেয়া হচ্ছে শিক্ষা খাতে। এটি ছয় শতাংশে নিয়ে যাওয়ার কথা। অথচ এখনো আমরা তিন শতাংশেও নিয়ে যেতে পারিনি।’
চট্টগ্রাম ভেটেরিনারি ও এনিম্যাল সায়েন্সেস বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাণী ও মৎস্য জাদুঘর অনেক স্বয়ংসম্পূর্ণ বলে জানান শিক্ষা বিভাগের সচিব মো. সোহরাব হোসাইন। তিনি বলেন, ‘এ বিশ্ববিদ্যালয়টিতে যে দুটি জাদুঘর খোলা হয়েছে, সব বাইরের দেশের চেয়ে কম নয়। এখান থেকে শিক্ষার্থীরা হাতে কলমে অনেক কিছু শিখতে পারবে।’
সমারম্ভ অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. গৌতম বুদ্ধ দাশ। এতে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন বিশ্ববিদ্যালয়ের (ছাত্রকল্যাণ) পরিচালক প্রফেসর ড. মোহাম্মদ আলমগীর হোসেন, প্রক্টর প্রফেসর গৌতম কুমার দেবনাথ, ফুড সায়েন্স অ্যান্ড টেকনোলজি অনুষদের ডিন প্রফেসর ডা. মো. রায়হান ফারুক, মেডিসিন অনুষদের ডিন প্রফেসর ড. মো. আহসানুল হক, ফিশারিজ অনুষদের ডিন প্রফেসর ড. আবছারুল খান।

আপনার মন্তব্য লিখুন