ডাকাতি মামলা

আদালতে অমিত মুহুরী

নিজস্ব প্রতিবেদক

বাল্যবন্ধু ইমরানুল করিম ইমন হত্যা মামলার আসামি সন্ত্রাসী অমিত মুহুরীকে ডাকাতির অন্য একটি মামলায় কারাগার থেকে আদালতে উপস্থাপন করেছে পুলিশ।
গতকাল বৃহস্পতিবার মহানগর হাকিম মেহনাজ রহমানের আদালতে হাজির করলে আদালত তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।
নগর পুলিশের অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার (প্রসিকিউশন) নির্মলেন্দু বিকাশ চক্রবর্তী সুপ্রভাতকে বলেন, ‘অমিত কোতোয়ালী থানাধীন চেরাগী পাহাড়ের পার্শ্ববর্তী এলাকায় ডাকাতির প্রস্তুতিকালে আটক হওয়ার পর পুলিশ বাদি হয়ে গত এপ্রিল মাসে একটি মামলা দায়ের করেন। এ মামলায় হাজিরা দিতে তাকে আদালতে হাজির করা হয়। অমিত ছাড়া ওই মামলার ১১ জন আসামি পলাতক রয়েছে।
পুলিশ সূত্রে জানা যায়, নগরের নন্দনকানন এলাকায় গত ৯ আগস্ট সংগঠিত ইমরানুল করিম ইমন হত্যা মামলা ছাড়াও নগরীর বিভিন্ন থানায় দায়ের হওয়া প্রায় ২৪টি মামলার আসামি এই অমিত মুহুরী। আমতল এলাকায় গত ফেব্রুয়ারি মাসে সংঘটিত ইয়াছিন আরাফাত হত্যা মামলার আসামিও সে। কেন্দ্রীয় যুবলীগ নেতা হেলাল আকবর চৌধুরী বাবরের অনুসারি অমিত সিআরবিতে রেলের দরপত্র নিয়ে জোড়া খুনের অন্যতম আসামি।
বন্ধু ইমরানুল করিম ইমন হত্যা মামলায় গ্রেফতারের পর থেকে সে কারাগারে রয়েছে।
আদালত সূত্রে জানা যায়, ১৩ আগস্ট নগরীর কোতোয়ালী থানাধীন এনায়েত বাজার রানীর দীঘি থেকে সিমেন্ট ঢালাই করা ড্রামের ভেতর থেকে ইমরানুল করিম ইমন নামের এক যুবকের লাশ উদ্ধার করে পুলিশ।
৯ আগস্ট নগরীর নন্দনকানন ৩ নম্বর গলির হরিশ দত্ত লেইনের বেঙ্গল হোল্ডিংয়ের ষষ্ঠ তলায় অমিতের বাসায় ইমনকে হত্যা করে ড্রামে ভরে চুন, এসিড দিয়ে সিমেন্ট ঢালাই করে ১২ আগস্ট ফেলে দেওয়া হয় রানীর দিঘিতে। এ ঘটনায় ২ সেপ্টেম্বর কুমিল্লার আদর মাদক নিরাময় কেন্দ্র থেকে গ্রেফতার হন অমিত মুহুরী।