ইপিজেড এলাকায় লাইনে ফুটো

আজ দুপুরের পর স্বাভাবিক হতে পারে গ্যাস সরবরাহ

নিজস্ব প্রতিবেদক

গ্যাস দুর্ভোগের মুক্তি মিলতে পারে আজ দুপুরের পর। খালের তলদেশের ১২ ফুট গভীরে ২৪ ইঞ্চি ব্যাসের প্রধান গ্যাস সঞ্চালন লাইনের পাইপ ফুটো হয়ে যাওয়ায় গত দুদিন ধরে তা সংস্কার করতে পারেনি কর্ণফুলী গ্যাস ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি লিমিটেড (কেজিডিসিএল) কর্তৃপক্ষ। তবে আজ দুপুরের মধ্যে তা সংস্কার হয়ে যেতে পারে। সেই হিসেবে নগরীর এক তৃতীয়াংশ এলাকার গ্যাস সংকটের সমাধান হতে পারে আজ।
আজ দুপুরের মধ্যে তা সমাধান হতে পারে জানিয়ে কেজিডিসিএল’র মহাব্যস’াপক (অপারেশন) প্রকৌশলী আনিসুর রহমান বলেন, ২৪ ইঞ্চি ব্যাসের প্রধান সঞ্চালন লাইনটি ফুটো হয়ে যায়। সিটি করপোরেশনের লোকজন খালের পাইলিং করতে গেলে মাটির ১২ ফুট গভীরে থাকা পাইপটি ফুটো হয়ে যায়। এতেই বিপত্তি দেখা দেয়।
কিন’ গত দুদিনেও তা সমাধান করা যায়নি কেন জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘আকমল আলী রোডে একটি খালের মাঝখান দিয়ে যাওয়া পাইপের অংশে তা ফুটো হয়েছে। খালের ভেতরে কাজ করতে যাওয়ার ক্ষেত্রে প্রতিবন্ধকতা রয়েছে। তারপরও মাটির গভীরে কাজ করার সময় দুই পাশ থেকে মাটি ভেঙে পড়ে যায়। তাই আমরা গতকাল (রোববার) কাজ শেষ করতে পারিনি। এখন শোর পাইলিংয়ের মাধ্যমে উভয় পাশের মাটির ধস বন্ধ করে কাজ করতে হচ্ছে।’
কবে নাগাদ তা শেষ হতে পারে, জানতে চাইলে তিনি বলেন, পাইপলাইনের উভয় পাশের গ্যাসের লাইন বন্ধ করে কাজ করতে হচ্ছে। তাই আজ দুপুরের মধ্যে হয়তো কাজ শেষ হয়ে যাওয়ার পর পাইপলাইনে গ্যাস সরবরাহ স্বাভাবিক হতে পারে।
কেজিডিসিএল কর্মকর্তাদের সাথে কথা বলে জানা যায়, ২৪ বছরের পুরনো প্রধান এই গ্যাস পাইপলাইন দিয়ে নগরীর গ্যাস সরবরাহ হয়ে আসছে। রিং আকারে বেষ্টন করা এই গ্যাস পাইপের ইপিজেডের পাশে আকমল আলী রোডে পাইপে ফুটো হওয়ায় নগরীর পূর্ব পাশের এলাকায় গ্যাস সরবরাহ বন্ধ হয়ে যায়। পাইপ ফুটো হওয়ার কারণে গত শনিবার বিকেল থেকে বন্ধ হয়ে যাবার পর এসব এলাকার মানুষ গ্যাস ভোগান্তিতে পড়ে। চট্টগ্রাম ইপিজেড, কর্ণফুলী ইপিজেড, বেসরকারি বিদ্যুৎকেন্দ্র (৬০ মেগাওয়াট) ইউনাইটেড পাওয়ার, হালিশহর, পতেঙ্গা, বন্দর, আগ্রাবাদ, সদরঘাট, চাক্তাই, বাকলিয়া, ফিরিঙ্গী বাজার, আন্দরকিল্লা, হেমসেন লেন, জামাল খান, চেরাগী পাহাড়সহ বিভিন্ন অংশে কোথাও পুরোপুরি আবার কোথাও আংশিকভাবে গ্যাস সরবরাহ বন্ধ রয়েছে। এদিকে গ্যাস বন্ধের কারণে এসব এলাকার মানুষের ভোগান্তি চরমে পৌঁছে । কেউবা স্টোভে আবার কেউবা লাকড়ির চুলায় রান্না করতে বাধ্য হয়।
জানা যায়, সিটি করপোরেশন পতেঙ্গা ইপিজেড আকমল আলী রোডের মাইট্টা খালে পাইলিং করতে গেলে গ্যাস সরবরাহের পাইপটি ফুটো হয়ে যায়।
এদিকে কেজিডিসিএল কর্তৃপক্ষ জানায়, সাধারণত খালের ভেতরে গ্যাসের পাইপলাইনের ওপর কাজ করতে গেলে সব সময় কেজিডিসিএলকে জানানো হয়। কিন’ এবার কাজ করার সময় কেজিডিসিএলকে তা জানায়নি সিটি করপোরেশন। এ বিষয়ে কেজিডিসিএলের মহাব্যস’াপক (অপারেশন) প্রকৌশলী আনিসুর রহমান বলেন, ‘কাজ শেষ হওয়ার পর আমরা সিটি করপোরেশনের কাছে এর ব্যাখ্যা চাইবো। তাদের ভুলের কারণেই নগরবাসী গ্যাস দুর্ভোগে পড়েছে।’