আখতারুজ্জামান বাবুর ৬ষ্ঠ মৃত্যুবার্ষিকী আজ

নিজস্ব প্রতিনিধি, আনোয়ারা

বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য, চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের প্রাক্তন সভাপতি, সাবেক সংসদ সদস্য মুক্তিযোদ্ধা আখতারুজ্জামান চৌধুরী বাবুর ৬ষ্ঠ মৃত্যুবার্ষিকী আজ ।
মৃত্যুবার্ষিকী পালন উপলক্ষে আনোয়ারা-কর্ণফুলী উপজেলা আওয়ামী লীগের উদ্যোগে আজ রোববার সকাল থেকে বাবুর খবরে পুষ্পমাল্য অর্পণ, শ্রদ্ধা নিবেদন, আলোচনা সভা, খতমে কোরআন, মিলাদ মাহফিলসহ বিভিন্ন কর্মসূচির আয়োজন করা হয়েছে। অনুষ্ঠানে ভূমি প্রতিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী জাবেদ এমপি উপসি’ত থাকবেন।
১৯৪৫ সালে আনোয়ারা হাইলধর গ্রামে বর্ণাঢ্য পরিবারে জন্মগ্রহণ করেছিলেন আখতারুজ্জামান চৌধুরী বাবু। তার পিতার নাম নুরুজ্জামান চৌধুরী। তিনি পেশায় একজন আইনজীবী ছিলেন। তাঁর মাতার নাম খোরশেদা বেগম। মরহুম বাবু আজীবন গরিব দুঃখী মানুষের পাশে থেকে তাদের ভাগ্যের উন্নয়নে কাজ করে গেছেন। তিনি ১৯৭০, ১৯৮৬, ১৯৯১, ও ২০০৮ সালে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন।
তিনি চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য, শিল্প ও বাণিজ্য সম্পাদক ও ২০১১ সালে প্রেসিডিয়াম সদস্য হয়েছিলেন। তিনি দীর্ঘকাল ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠনগুলোর নেতৃত্বে ছিলেন। আখতারুজ্জামান চৌধুরী বাবু দু’বার চট্টগ্রাম চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির সভাপতি, এফবিসিসিআই’র প্রেসিডেন্ট এবং প্রশাসক, ওআইসিভূক্ত দেশসমূহের চেম্বার প্রেসিডেন্ট ও ১৯৮৯ সালে ৭৭ জাতি গ্রুপের ভাইস প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হয়েছিলেন। সর্বশেষ জাতীয় সংসদের পাট ও বস্ত্রবিষয়ক স’ায়ী কমিটির সভাপতি ছিলেন। তিনি চট্টগ্রামের উন্নয়নে অগ্রণী ভূমিকা পালন করে গেছেন। স্বৈরাচার বিরোধী আন্দোলনে তিনি কারারুদ্ধ হন। সাধারণ মানুষের কাছে আখতারুজ্জামান চৌধুরী বাবু একজন দানবীর হিসেবে খ্যাত ছিলেন।
আনোয়ারা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এম.এ মালেক বলেন, এবার মৃত্যুবার্ষিকীর দিন জেএসসি ও জেডিসি পরীক্ষার্থীদের কথা বিবেচনা করে বড় কোন আয়োজন করা হয়নি। তবে রোববার সকাল থেকে কবরে শ্রদ্ধা নিবেদন, আলোচনা সভা ও খতমে কোরআন মাহফিলের মধ্য দিয়ে দিনব্যাপী কর্মসূচি পালন করা হবে।
উল্লেখ্য, ২০১২ সালের ৪ নভেম্বর আখতারুজ্জামান চৌধুরী বাবু ইন্তেকাল করেন। তাঁর মৃত্যুর পর ছেলে সাইফুজ্জামান চৌধুরী জাবেদ একই আসন থেকে আওয়ামী লীগ প্রার্থী হিসেবে এমপি নির্বাচিত হন। বর্তমানে তিনি বাংলাদেশ সরকারের ভূমি প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করছেন।