চাগাচরে সংবর্ধনায় এমপি নজরুল

আওয়ামী সরকারই জনস্বার্থে কাজ করে

নিজস্ব প্রতিনিধি, চন্দনাইশ

“সর্বনাশী শঙ্খ রাক্ষুসে শঙ্খ” চন্দনাইশ উপজেলার চাগাচর গ্রামবাসীর পরিচিত দুটি শব্দ। বর্ষা মৌসুমে সর্বনাশী শঙ্খ গ্রাস করে নেয় দোহাজারী চাগাচর গ্রামের শত শত বসতভিটা,স্কুল,মসজিদ,মাদ্রাসা।বিগত দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নৌকা প্রতীক নিয়ে জয়ের পর জাতীয় সংসদে প্রথম বক্তব্যেই সাংসদ আলহাজ্ব নজরুল ইসলাম চৌধুরী জোরালোভাবে তুলে ধরেন আগ্রাসী শঙ্খের কথা। শঙ্খে বিলীন হতে থাকা হাজার হাজার বসতঘরের কথা।তাঁর ওই বক্তব্যের পর মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সংশ্লিষ্টদের নির্দেশ দেন শঙ্খে ভাঙ্গন প্রতিরোধে প্রয়োজনীয় ব্যবস’া গ্রহণের।পরবর্তীতে শঙ্খের ভাঙ্গনে ২০০ কোটি টাকা বরাদ্দ দিয়ে দ্রুত প্রতিরক্ষা বাঁধ নির্মাণ কাজ শুরু করা হয়।তারই ধারাবাহিকতায় শুধু চাগাচর এলাকায় প্রায় দেড় কিলোমিটার প্রতিরক্ষা বাঁধ নির্মাণ করা হয়।একইভাবে সাতকানিয়ার কালিয়াইশ অংশেও প্রায় দেড় কিলোমিটার এলাকা জুড়ে প্রতিরক্ষা বাঁধ নির্মাণ কাজ শেষ হয়েছে। সংসদ সদস্য নজরুল ইসলাম চৌধুরীর প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ ও সংবর্ধনা প্রদান করতেই দোহাজারী চাগাচরবাসী গত ৯ মার্চ বিকেলে বিশাল জনসমাবেশের আয়োজন করে। উক্ত সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে নজরুল ইসলাম চৌধুরী বলেন, দেশের উন্নয়ন তথা আমাদের ভাগ্যের উন্নয়নের জন্যই আগামী নির্বাচনে আবারও শেখ হাসিনাকে ক্ষমতায় আনতে হবে। এখন শেখ হাসিনার ভিশন ২০৪১ বাস্তবায়নে আমাদের সকলকে এগিয়ে আসতে হবে। আগামী নির্বাচনে নৌকা মার্কায় ভোট দিয়ে শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করতে হবে। মো. লোকমান হাকিমের সভাপতিত্বে ও মো. তছলিম রেজভীর সঞ্চালনায় সমাবেশে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন হাবিবুর রহমান।
অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন মাহামুদুল হক, মোহাম্মদ ফারুক, সাইফুদ্দিন মানিক, জাহাঙ্গীর আলম, ফরিদুল ইসলাম তুহিন, আহমদ ছোবহান, ডা. নোমান রেজভী, মোহাম্মদ ইলিয়াছ, মোহাম্মদ ইউনুচ, নুর আহমদ, ব্যাংকার তৌহিদুর রহমান, আহমদ কবির, মোহাম্মদ রুবেল প্রমুখ। সমাবেশে নজরুল ইসলাম চৌধুরীকে একটি কাঠের নৌকা ও ক্রেস্ট প্রদান করে সংবর্ধিত করা হয়।