সালানা জলসায় আল্লামা তাহের শাহ

অলিদের আদর্শ অনুসরণই সংকট মুক্তির উপায়

বিশ্বব্যাপী ইসলাম প্রচার ও প্রসারে যারা অনুকরণীয় দৃষ্টান্ত রেখে গেছেন তাদের মধ্যে আউলিয়া কিরামের ভূমিকা অনস্বীকার্য। শরীয়ত ও তরিক্বতের মর্মবাণী দিয়ে মানবাত্মাকে আলোকিত করার প্রয়াসে মুসলিম উম্মাহর ঐক্যসাধন, ঈমান আক্বিদা সংরক্ষণকল্পে মহান অলিদের অনুসৃত আদর্শ অনুসরণই সংকট উত্তরণ ও মুক্তির একমাত্র পাথেয়।
গতকাল বৃহস্পতিবার বেলা ৩ টায় আল্লামা সৈয়্যদ মুহাম্মদ তাহের শাহ (মা. জি. আ.)’র সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত বন্দর হালিশহরের মাদরাসা তৈয়্যবিয়া ইসলামি সুন্নিয়া ফাযিলের সালানা জলসায় তিনি এ অভিমত ব্যক্ত করেন।
তিনি আরও বলেন, বাইয়াত হওয়া এবং তওবা করার দরুণ আল্লাহ তাবারাকা ওয়াতায়ালা সমস্ত গুণাহ ক্ষমা করে দেন, কিন্তু পরের হক বা অধিকার মাফ করেন না। এছাড়া বাকি যত গুণাহ আল্লাহতায়ালা আপন কৃপায় ক্ষমা করে দেন। দ্বীনের খিদমত ও হযরাতে কেরামের প্রতিষ্ঠিত মাদরাসাগুলোর আর্থিক সাহায্য সহযোগিতা ও বহুমুখী খিদমতের মাধ্যমে আল্লাহ রাসুলের সন্তুষ্টি অর্জন করুন।
এতে প্রধান মেহমান ছিলেন আওলাদে রাসুল শাহজাদা হযরতুলহাজ আল্লামা সৈয়্যদ মুহাম্মদ কাসেম শাহ (মা জি. আ.)।
উদ্বোধনী বক্তব্য রাখেন মাদরাসা পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি ও লায়ন্স জেলা গভর্নর মুহাম্মদ মনজুর আলম মনজু। বার্ষিক প্রতিবেদন পাঠ করেন মাদরাসা পরিচালনা পর্ষদের সম্পাদক আলহাজ মোহাম্মদ আলী।
উপস্থিত ছিলেন আলহাজ মোহাম্মদ মহসিন, আলহাজ মোহাম্মদ আনোয়ার হোসেন, আলহাজ মোহাম্মদ সামশুদ্দিন, আলহাজ মুহাম্মদ সিরাজুল হক, আলহাজ মোহাম্মদ সিরাজুল হক, এস এম গিয়াস উদ্দীন শাকের। স্বাগত বক্তব্য রাখেন অধ্যক্ষ মাওলানা বদিউল আলম রিজভী।
তকরীর করেন অধ্যাপক কাজী শামসুর রহমান, আলহাজ পেয়ার মোহাম্মদ, আলহাজ আনোয়ারুল হক, অধ্যাপক ড. মাওলনা মুহাম্মদ জাফর উল্লাহ, আলহাজ মুহাম্মদ আবদুল হামিদ, অ্যাডভোকেট মোসাহেব উদ্দিন বখতিয়ার, আলহাজ মুহাম্মদ আবুল মনছুর, আলহাজ মুহাম্মদ সেলিম, আলহাজ মুহাম্মদ মাহবুবুল আলম, আলহাজ গোলাম কিবরিয়া, আলহাজ মুহাম্মদ ইলিয়াছ, মোজাফ্‌ফর আহমদ, মাওলানা এ এস এম জালাল উদ্দিন ফারুকী, মাওলানা মুহাম্মদ আবুল হাছানাত আলকাদেরী, মাওলানা মুহাম্মদ মুজিবুর রহমান, মাওলানা মুহাম্মদ ছগীর আহমদ, মাওলানা মুহাম্মদ ইউনুছ তৈয়্যবী, মাওলানা মুহাম্মদ রফিকুল ইসলাম আনোয়ারী, মাওলানা মুহাম্মদ জহির উদ্দিন, মাওলানা মুহাম্মদ আবদুল গফুর খাঁন, মুহাম্মদ রেজাউল করিম, মাওলানা মুহাম্মদ সাইফুল্লাহ খালেদ প্রমুখ।
শেষে মিলাদ কিয়ামের মাধ্যমে বিশ্ব মুসলিম উম্মাহর সুখ-শান্তি ও সমৃদ্ধি কামনা করে মুনাজাতের মাধ্যমে জলসার সমাপ্তি হয়।
অনুষ্ঠান সঞ্চালনায় ছিলেন মাওলানা আবুল হাছানাত আলকাদেরী ও মাওলানা ছগীর আহমদ আলকাদেরী। বিজ্ঞপ্তি