অবৈধ বসতি স্থাপন মধ্যপ্রাচ্য শান্তি প্রক্রিয়া বিঘ্নিত করবে: ট্রাম্প

সুপ্রভাত বহির্বিশ্ব ডেস্ক

পশ্চিম তীরে ইসরায়েলের দখলকৃত এলাকায় স’াপন করা বসতিগুলো মধ্যপ্রাচ্যের শান্তি-প্রক্রিয়াকে জটিল করে তুলছে বলে মন্তব্য করেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। ইসরায়লি কর্তৃপক্ষকে বিষয়টি ‘নজরে’ রাখার আহ্বান জানিয়েছেন তিনি। রোববার দেশটির রক্ষণশীল সংবাদমাধ্যম ইসরায়েল হাইয়ুমে প্রকাশিত এক সাক্ষাৎকারে মার্কিন প্রেসিডেন্ট এসব মন্তব্য করেন। খবর বাংলাট্রিবিউন। ১৯৬৭ সালের আরব-ইসরায়েল যুদ্ধের পর পশ্চিম তীর ও পূর্ব জেরুজালেম দখল করে নেয় ইসরায়েল। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসির খবরে বলা হয়েছে, এসব এলাকায় ১৪০টি বসতিতে ছয় লাখেরও বেশি ইহুদি বসবাস করেন। আন্তর্জাতিক আইন অনুসারে এসব বসতিকে অবৈধ বলে বিবেচনা করা হয়। তবে ইসরায়েল একে বৈধ দাবি করে থাকে। ইসরায়েলের বসতি নিয়ে সংবাদমাধ্যমটির এক প্রশ্নের জবাবে ট্রাম্প বলেন, ‘আমরা বসতি নিয়ে কথা বলবো। বসতির বিষয়টি জটিল আর সবসময়ই তা শান্তি প্রক্রিয়াকে জটিল করে তোলে। আমার মনে হয় ইসরায়েলের বিষয়টা খেয়াল রাখা উচিত।’ গত বছরের ৬ ডিসেম্বর জেরুজালেমকে ইসরায়েলের রাজধানী হিসেবে স্বীকৃতি দেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। এরপর ফিলিস্তিনি প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাস জানিয়ে দেন, যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যস’তায় আর কোনও শান্তি আলোচনায় বসবেন না তারা। পরে অবশ্য আন্তর্জাতিক সমপ্রদায়ের অংশ হয়ে যুক্তরাষ্ট্র এই পরিকল্পনায় এলে তা মানতে রাজি হয় আব্বাসের দল পিএলও।
যুক্তরাষ্ট্র কখন তাদের মধ্যপ্রাচ্য পরিকল্পনা উপস’াপন করবে- ইসরায়েল হাইয়ুমের এডিটর ইন চিফ বোয়াজ বিসমাউথের এমন প্রশ্নের জবাবে ট্রাম্প বলেন, ‘কী ঘটছে তা আমরা পর্যবেক্ষণ করছি। এই মুহূর্তে ফিলিস্তিনিরা শান্তি প্রক্রিয়ার মধ্যে নেই, তারা এরমধ্যে একেবারেই নেই।
ইসরায়েলের বিষয়ে, আমি নিশ্চিত নই, তারাও হয়তো শান্তি প্রক্রিয়ায় আগ্রহী নয়। এ কারণে আমাদের অপেক্ষা করে কী ঘটছে তা দেখা দরকার।’