অবসরে যাননি ভিদাল

সুপ্রভাত ক্রীড়া ডেস্ক

ব্রাজিলের বিপক্ষে বাছাইপর্বের ম্যাচে মাঠে নামার আগে চিলির অবস’ান ছিল তিন নম্বরে। স্বাগতিক নেইমার-জেসুস-পাওলিনহোদের বিপক্ষে ৩-০ গোলে হেরে চিলির বিশ্বকাপ স্বপ্ন শেষ হয়ে যায়। মাত্র এক ম্যাচের ফলাফলেই তাদের বিদায় ঘণ্টা বাজে। দক্ষিণ আমেরিকা অঞ্চলের বাছাইপর্বে পঞ্চম স’ানে থাকলেও অন্তত ওশানিয়া অঞ্চলের শীর্ষ দল নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে প্লে-অফের ম্যাচে খেলার সুযোগ পেত চিলি। সেটিও পায়নি। মাত্র এক ম্যাচের পরাজয়ে ষষ্ঠ স’ানে নেমে যায় অ্যালেক্সিজ সানচেজ, আরতুরো ভিদাল, ক্লদিয়ো ব্রাভোরা। তাতে বিশ্বকাপের প্লে-অফও জুটেনি চিলিয়ানদের। এদিকে বিশ্বকাপ বাছাইপর্ব থেকে চিলির বাদ পড়ার দায়ভার মেনে নিয়ে কোচের পদ থেকে সরে দাঁড়িয়েছেন হুয়ান অ্যান্তোনিও পিজ্জি। এরপরই ছড়িয়ে পড়ে দলের তারকা মিডফিল্ডার আরতুরো ভিদালের অবসরের খবর। ৩০ বছর বয়সী বায়ার্ন মিউনিখের তারকা এই ফুটবলার নাকি নিজেই ঘোষণা দিয়েছেন জাতীয় দলের জার্সিতে আর খেলবেন না। দু’বারের কোপা আমেরিকা চ্যাম্পিয়নদের তারকা ভিদাল তাতে বেজায় চটেছেন। গণমাধ্যমকে একহাত নিয়েছেন জুভেন্টাসের সাবেক ফুটবলার। সাফ জানিয়ে দিয়েছেন, দল বিশ্বকাপ থেকে ছিটকে গেলেও আপাতত জাতীয় দল ছাড়ার কোনো কারণ নেই। তিনি জানান, ‘চিলির মানুষ কষ্ট পেয়েছে। কিন’, এটাও সত্যি আমি দল ছাড়ছি না। চিলিয়ানরা পরাজিত সৈনিকের মতো ভেঙে পড়তে চায় না।’
এর আগে প্যারাগুয়ের বিপক্ষে গত ৩১ আগস্ট বাছাইপর্বের ম্যাচে আত্মঘাতী গোল করেন ভিদাল। সেই ম্যাচে চিলি ৩-০ গোলের ব্যবধানে হেরেছিল। ম্যাচের পর হারের দায় পড়েছিল ভিদালের কাঁধে। বায়ার্নের এই মিডফিল্ডার তখন টুইট করেছিলেন, ‘এবার তোমরা দেশের মানুষ খুশিতো? আমি অবসর নিচ্ছি। তবে তোমরা জেনে রাখো প্রতিটি সময়ই আমি অবসরের খুব কাছে থাকি। এবার সত্যিই খুব কাছাকাছি।’