তৃতীয় বিভাগ ফুটবল লিগ

অপরাজিত থেকেই গ্রুপসেরা পাইরেটস

নিজস্ব ক্রীড়া প্রতিবেদক

ইম্পালস সিজেকেএস-সিডিএফএ তৃতীয় বিভাগ ফুটবল লিগে ‘ক’ গ্রুপ থেকে আগেই সুপার ফোর নিশ্চিত করে পাইরেটস অব চিটাগাং। আর গতকাল শেষ খেলায় ৪-১ গোলে শতাব্দী গোষ্ঠীকে পরাজিত করে অপরাজিতভাবে চ্যাম্পিয়ন হয়েছে শিরোপা প্রত্যাশী দলটি। বিজয়ী দলের পক্ষে দ্বিতীয়ার্ধে টুটুল ও ইলিয়াছ ২টি করে গোল করেন। এ জয়ে পূর্ণ ১৮ পয়েন্ট নিয়ে পাইরেটস অব চিটাগাং গ্রুপ পর্ব শেষ করলো। এম এ আজিজ স্টেডিয়ামে গতকাল বিকালে প্রথমার্ধ পর্যন্ত পাইরেটসকে ঠেকিয়ে রাখতে সক্ষম হলেও দ্বিতীয়ার্ধে ৪ গোল হজম করতে হয়েছে শতাব্দী গোষ্ঠীকে। ৪০ মিনিটে তাদের বদলি টুটুল বক্স থেকে দর্শনীয় শটে গোলের সূচনা করেন। এরপর ১৫ মিনিটে ইলিয়াছ ব্যবধান ২-০ করেন। ২০ ও ২৮ মিনিটে আবারো টুটুল ও ইলিয়াছ গোল করলে ৪-০ গোলে সহজ জয় নিশ্চিত হয় পাইরেটস দলের। শতাব্দীর একমাত্র গোলটি আসে ওবায়দুলের পা থেকে। এদিকে ইলিয়াছ পাইরেটসের পক্ষে চতুর্থ গোল করার পর নৃত্য করে উল্লাস প্রকাশ করতে গেলে রেফারি নাসির তাকে দ্বিতীয় দফা হলুদ কার্ড দেখালে মাঠ থেকে বের হতে হয় এ প্রতিশ্রুতিবান স্ট্রাইকারকে। এ নিয়ে ইলিয়াছ রেফারির কাছে গিয়ে প্রতিবাদ জানাতে থাকলে প্রশিক্ষক দেবাশীষ বড়ুয়া দেবু ছুটে গিয়ে তাকে নিবৃত্ত করেন। এছাড়া খেলার পরে একই দলের কয়েকজন খেলোয়াড় ও কর্মকর্তা উত্তেজিত হয়ে রেফারির দিকে তেড়ে যেতে চাইলে লিগ কমিটি ও দলীয় কর্মকর্তাদের হস্তক্ষেপে পরিস্থিতি শান্ত হয়।
একই দিন সকালে অগ্রণী সংঘ ওসমানের গোলে মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কেসি লালের বিরুদ্ধে জিতেছে। দুপুরে পারভেজের হ্যাটট্রিকে রাইজিং স্টার জুনিয়র ৪-২ গোলে পাঁচলাইশ যুব সংঘকে পরাজিত করে। রাইজিং স্টারের পারভেজ একাই ৩ ও বেলায়েত ১ গোল করেন। যুব সংঘের গোল দুটি আসে সেলিমের পা থেকে। ’ক’ গ্রুপে খেলা শেষে বন্দর ক্রীড়া সমিতি সাদা ১১ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয়, শতাব্দী গোষ্ঠী ৮ পয়েন্ট নিয়ে তৃতীয় হয়। অন্যদের মধ্যে অগ্রণী সংঘ ৭, রাইজিং জুনিয়র ৬, পাঁচলাইশ যুব সংঘ ২ ও মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কেসি লাল ১ পয়েন্ট পেয়েছে।
আজকের খেলা : সেবা নিকেতন-মুক্তবিহঙ্গ (সকাল ৯টা ১৫), গোসাইলডাঙ্গা যুব গোষ্ঠী-চিটাগাং রয়েলস (দুপুর ২টা ১৫), চন্দনাইশ উপজেলা ক্রীড়া সংস্থা-রাফা ক্রিকেট ক্লাব (বিকাল ৩টা ৪৫)।